করোনার কারণে এক বছর পেছালো হংকংয়ের পার্লামেন্ট নির্বাচন

0
43

আগামী পার্লামেন্ট নির্বাচন এক বছর পেছানোর ঘোষণা দিয়েছে হংকং। করোনার কারণে সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কায় দেশটির সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গত শুক্রবার হংকংয়ে ১২১ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়। বর্তমানে সেখানে কভিড-১৯ সংক্রমণের মাত্রা বেড়েছে। যদিও দেশটির বিরোধী দলের অভিযোগ জনগণকে ভোট দানে বাধা দিতে মহামারীকে সরকার অজুহাত হিসাবে ব্যবহার করছে। এদিকে গত বৃহস্পতিবার গণতন্ত্রপন্থী ১২ প্রার্থীর ওপর নির্বাচনে অংশগ্রহণের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

বেইজিংয়ের চাপিয়ে দেওয়া বিতর্কিত নিরাপত্তা আইনের বিরুদ্ধে জাতীয় ক্ষোভকে পুঁজি করে বিরোধী দলীয় কর্মীরা সেপ্টেম্বরের জরিপে বিধানসভা পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের প্রত্যাশা করছিল। স্থানীয়রা আশঙ্কা প্রকাশ করছে যে, বিতর্কিত ওই নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে এ অঞ্চলের স্বাধীনতা হ্রাস করা হচ্ছে। তাছাড়া গত বছরের জেলা পরিষদ নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থীরা অভূতপূর্ব বিজয় অর্জন করেছিল; ১৮টি কাউন্সিলের মধ্যে ১৭টিতেই তারা জয়লাভ করে।

যদিও হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম জরুরী ভিত্তিতে নির্বাচন স্থগিতের জন্য জোর দাবী জানান। তিনি বলেন, গত সাত মাসে এটি আমি সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তিনি আরো যুক্ত করেন যে, নির্বাচন মুলতবি সম্পূর্ণরূপে জননিরাপত্তাজনিত কারণের ভিত্তিতে করা হয়েছে, এ সিদ্ধান্তের নেপথ্যে কোনো রাজনৈতিক বিবেচনা ছিল না।

এদিকে গত দশ দিন ধরে দেশটিতে প্রতিদিন ১০০ জনেরও বেশি লোক নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। অন্যান্য দেশের তুলনায় হংকংয়ে মোট করোনা আক্রান্তের পরিমান কম হলেও সম্প্রতি স্থানীয় সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। কিছুদিন আগেও যেখানে স্থানীয় সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় শুণ্য ছিল বলা যায়। বর্তমান অবস্থাকে তারা করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ হিসাবে আখ্যায়িত করছে। হংকংয়ের হাসপাতালগুলো নতুন রোগি দিয়ে পূর্ণ হয়ে যাওয়া শঙ্কা প্রকাশ করছেন ক্যারি ল্যাম। তবে হংকংয়ের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন সামাজিক দুরত্ব মেনে চলার নিয়মগুলো পুনরায় চালু করার ফলে সংক্রমণের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে এবং তারা আশা করছেন যে আগামী চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে স্থানীয় সংক্রমণ শুণ্যের কাছাকাছি ফিরে আসবে।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here