বর্তমানে ফ্যাশনে শাড়ির ব্যবহার

0
15

মাহমুদ খান : ফ্যাশনে যতোই মানুষের আগ্রহ বাড়ছে, ততোই বাড়ছে শাড়ি নিয়ে নানা ধরনের নান্দনিক কাজ। কখনো রঙ-তুলির মাধ্যমে, কখনোবা সুতার কাজ দিয়ে প্রকাশিত হয় এসব নান্দনিকতা। দৃষ্টিনন্দন এই শাড়িরও আছে পরিধানের নানা ঢঙ।

জানা যায়, বর্তমান কালের আধুনিক শাড়ি পরার রীতির সাথে বাঙালি নারীকে সর্বপ্রথম পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের বিখ্যাত জোঁকাসাঁকো ঠাকুর পরিবারের বউ-মেয়েরা। তাদের নিত্য-নতুন শাড়ি পরার ঢঙ কিংবা স্টাইল ঝড় তুলেছিল তখনকার অন্দরমহলের বাসিন্দাদের মনে। এই তালিকার প্রথমেই নাম আসে ঠাকুরবাড়ির অন্যতম পুত্রবধু জ্ঞানদানন্দিনী দেবী’র। তার শাড়ি পরার ঢঙ ছিল তৎকালীন সমাজে অনুকরণীয় ফ্যাশন। সেই ধারাটা আজও চলে আসছে।
যদিও কালের বিবর্তনে এসেছে রঙ, কাপড় ও ডিজাইনের পরিবর্তন। তবু আজও বঙ্গ ললনাদের পরিধেয় পোশাকের প্রথম স্থানটি দখল করে রয়েছে শাড়ি। এবারে ঈদ ফ্যাশনে তাই নগরীর বুটিক হাউজ ও শপিং মলগুলোতে দেখা গেছে দুর্দান্ত সব শাড়ির কালেকশন।

ডিজাইনারদের মতে, ইদানিং মেয়েরা সুতি, খাদি, অ্যান্ডি, সিল্ক, হাফ সিল্ক শাড়ির প্রতিই বিশেষ নজর দেন। প্রকৃতির সাথে মিল রেখে শাড়িতে হালকা ও উজ্জ্বল রঙের ব্যবহার তাদের প্রধান আকর্ষণ। পাশাপাশি নীল, বেগুনি, ম্যাজেন্টা, ফিরোজা, পেস্ট, সাদা, গোলাপী, সবুজ রঙের শাড়িতে এধরনের রঙের প্রাধান্যও

ডিজাইনাররা জানান, এখন শাড়িতে চওড়া পাড়ের আধিক্য বেশি দেখা যাচ্ছে। সুতি, জর্জেট ও সিল্ক শাড়ির ওপর পাড় এবং তাতে সুতার কাজ বা হ্যান্ড প্রিন্ট চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here