খুলনায় অর্ধেকে নেমে এসেছে ইলিশের দর

0
100

খুলনা ব্যুরো: খুলনার সবচেয়ে বড় ইলিশের পাইকারি বাজার কেসিসি রূপসা পাইকারি মৎস্য আড়তে এখন রুপালি ইলিশে ভরপুর। অলিগলি পাড়া-মহল্লায়ও ভোর থেকে রাত অবধি চলছে ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতাদের ইলিশ বিক্রির ধুম। মাত্র কয়েকদিন আগে চড়া দামে ইলিশ বিক্রি হলেও এখন দাম নেমেছে প্রায় অর্ধেকে। এক কেজি ওজনের প্রতিটি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার-১২শ’ টাকায়। তিন দিন আগে একই ওজনের মাছ কিনতে হয়েছে দ্বিগুণ দামে।সাগরে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞার সময় শেষ হওয়ার পর প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় দামও নাগালের মধ্যে। তাই আড়তদার, পাইকার, খুচরা বিক্রেতা সবার মধ্যেই ফিরেছে স্বস্তি। দাম কমায় মৌসুমে টাটকা ইলিশের স্বাদ নিতে বিভাগের সবচেয়ে বড় এ আড়তে প্রতিদিন মাছ কিনতে আসছেন হাজারও ক্রেতা। আড়তদাররা জানান, সপ্তাহখানেক আগেও ইলিশ ছিল অগ্নিমূল্য। এখন তা অনেকটা সহনীয় পর্যায়ে নেমে এসেছে। বলতে গেলে অর্ধেকে। মানুষ চাতক পাখির মত চেয়েছিল কখন ইলিশের দাম কমবে। নদী ও সাগরে ঝাঁকে-ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ায় সরবরাহ বাড়ায় দাম কমে গেছে। দাম কম হওয়ায় ক্রেতারাও স্বাদের ইলিশ কেনায় ঝুঁকছে। রুপালি ইলিশ। বিক্রেতাদের দাবি, ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা বন্ধ ছিল। যে কারণে সমুদ্রে মাছ ধরতে যেতে পারিনি জেলেরা। এতে বাজারে পর্যাপ্ত ইলিশ ছিল না। যার কারণে দাম ছিল বেশি। কিন্তু নিষেধাজ্ঞার সময় শেষ হওয়ার পর সাগরে প্রচুর মাছ পাওয়া যাওয়ায় দামও কমেছে। মো. আব্দুল্লাহ নামে এক ক্রেতা বলেন, দুই-তিন দিন ধরে বাজারে প্রচুর পরিমাণে সাগরের ইলিশ আসছে। আগের চেয়ে কিছুটা কম দামেই এখন ইলিশ বিক্রি হচ্ছে। ইলিশের দাম কমে যাওয়ায় বেশি করে ইলিশ কিনেছেন বলে জানান তিনি। শুক্রবার (২৬ জুলাই) খুলনার সবচেয়ে বড় ইলিশের পাইকারি বাজার কেসিসি রূপসা পাইকারি মৎস্য আড়তের মদিনা ফিশের মালিক আবু মুসা বলেন, সাগর ও নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ। তাই মোকামগুলোতেও ছোট-বড় ট্রলারে আসতে শুরু করেছে এ রুপালি ইলিশ। তাছাড়া ইলিশে এখন কানায় কানায় ভরে গেছে পাইকারি বাজার। বাজারে এখন যা আছে তার বেশির ভাগই সাগরের মাছ। তিনি জানান, সাগরের ৪০০-৫০০-৬০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৫০০ টাকা কেজি দরে পাওয়া যাচ্ছে। এক কেজি ওজনের মাছ পাওয়া যাচ্ছে ৮শ’-৯শ’ টাকায়। আবু মুসা জানান, নদীর দেড় কেজি ওজনের ইলিশের পাইকারি মূল্য ১৫শ’-১৬শ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা তিন দিন আগে ছিল ২৬শ’। এক কেজি সাইজের ইলিশের পাইকারি দাম ১১শ’-১২শ’ টাকা। যা তিন দিন আগে ছিল ১৭শ’- ১৮শ’। ৭-৮শ’ গ্রাম সাইজের ইলিশের দাম ৮০০-৯০০ টাকা। যা তিন দিন আগে ১৫শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তিনি বলেন, খুচরা বাজারেও ইলিশের দাম প্রায় অর্ধেক কমেছে। বেঙ্গল ফিশের আড়তদার লিটন বলেন, নদীর ইলিশের চেয়ে সাগরের ইলিশের দাম বেশি কমেছে। ২৩ জুলাইয়ের আগে প্রতিদিন ৫ টন মাছ আসতো। শুক্রবার ৬০-৭০ টন ইলিশ বাজারে এসেছে। তিনি জানান, ইলিশের সরবরাহ ভালো। সাগরের ইলিশে বাজার ভরপুর। তাই দাম কম।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here