মুস্তাফিজ শফির কথায় রাজিবের ‘একদিন বৃষ্টির শহরে’

0
9

আনন্দ প্রতিদিন প্রতিবেদক : ‘একদিন বৃষ্টির শহরে/ হাঁটবো দু’জন হাত ধরে/ একদিন জানালা ফুঁড়ে/ মেঘের দুপুরে, উড়বো শঙ্খচিল…’ এমনই কথায় সাজানো গানের গল্প।  প্রিয়জনের সঙ্গে বৃষ্টিতে ভেজা, হাতে হাত রেখে শহর পরিভ্রমণ, মেঘলা দুপুরে শঙ্খচিলের মতো ডানা মেলে আকাশে উড়ার বাসনা এমনই গীতিগল্প ওঠে এসেছে ক্লোজআপ ওয়ান তারকা রাজিবের নতুন গানে; যার শিরোনাম ‘একদিন বৃষ্টির শহরে’। নন্দিত কবি ও কথাসাহিত্যিক মুস্তাফিজ শফির লেখা এই গীতিকবিতায় সুর সংযোজন করেছেন লুৎফর হাসান।  সঙ্গীতায়োজন করেছেন gv‡m©j।  সম্প্রতি ড্রপ বিট স্টুডিওতে গানটি রেকর্ড করা হয়েছে।  আসছে ঈদে অডিও ভিডিও প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান জি-সিরিজ থেকে লিরিক্যাল ভিডিও আকারে গানটি প্রকাশ পাবে।

দীর্ঘদিনের সাংবাদিকতা ও সাহিত্যচর্চার পাশাপাশি সঙ্গীত ভুবনে গীতিকবি হিসেবে পা রাখা প্রসঙ্গে সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি বলেন, ‘আমার কবিতায় সুরারোপ করে এর আগেও অনানুষ্ঠানিকভাবে অনেকে গেয়েছেন।  তবে একটি গান নিয়ে এরকম আয়োজন এটাই প্রথম।  বৃষ্টি নিয়ে প্রতিটা মানুষের মনের ভেতরেই কিছু কল্পনা আছে। এই গানের কল্পনার সঙ্গে অনেকের কল্পনা মিলে যাবে এটা বলাই যায়।  আশা করি লুৎফর হাসানের সুর আর রাজিবের গায়কীতে গানটি সবার ভালো লাগবে।’

‘একদিন বৃষ্টির শহরে’ গান নিয়ে কণ্ঠশিল্পী রাজিব বলেন, ‘অনেকদিন পর এমন একটি গানে কণ্ঠ দিলাম, যার কথা ও সুরে শ্রোতা বৈচিত্র খুঁজে পাবেন। গানের কথায় মিশে আছে এমন কিছু দৃশ্য যা বাস্তব করে তোলার ইচ্ছা অনেকের মনের মধ্যে থাকে। এ ধরনের গীতিকথার সঙ্গে যে মেলেডি থাকা উচিত ঠিক সেটাই তুলে ধরেছেন সুরকার লুৎফর হাসান ও সঙ্গীতায়োজক মার্শাল।  আমার বিশ্বাস, এই গানে শ্রোতা নতুন এক রাজিবকে আবিস্কার করবেন।’ রাজিবের এই কথার সঙ্গে একমত পোষণ করে সুরকার লুৎফর হাসান বলেন, ‘প্রতি সপ্তাহে কোনো না কোনো শিল্পীর জন্য গান করছি। কিন্তু চাইলেও গানে সবসময় ভিন্নমাত্রা যোগ করা সম্ভব হয়ে ওঠে না।  এদিক থেকে ‘একদিন বৃষ্টির শহরে’ গানটি ব্যতিক্রম। গানের কাব্যকথায় যেমন নান্দনিকতা আছে, তেমনি আছে দারুণ এক কল্পদৃশ্য।  gv‡m©jর সঙ্গীতায়োজনেও রয়েছে মেলোডির ছোঁয়া।  রাজিবের গায়কী নিয়ে নতুন করে, কিছু বলার নেই কারণ তিনি পরীনিত একজন শিল্পী।  চেষ্টা করেছেন নিজেকে ভেঙে গায়কীতে নতুনভাবে তুলে ধরার।  সবমিলিয়ে ‘একদিন বৃষ্টির শহরে’ এ সময়ের শ্রোতাপোযোগী গান হয়ে উঠেছে।  গানটি সব শ্রেণির শ্রোতার ভালো লাগলেই আমাদের এ প্রচেষ্টা সার্থক হয়ে উঠবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here