কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানকে ধমক তালেবানের

0
13

ইমরান খানের সরকারকে হতবাক করে কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে এবার কড়া ধমক দিল সন্ত্রাসবাদী সংগঠন তালেবান। পাক সেনার ষড়যন্ত্রে জল ঢেলে বৃহস্পতিবার সংগঠনটি জানায়, কাশ্মীর ও আফগানিস্তান সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয়। এই কথা মাথায় রেখে দুটি বিষয় যেন গুলিয়ে না ফেলে ইসলামাবাদ।

ভারতীয় সংবিধানের বিতর্কিত ৩৭০ ধারা বিলোপ হওয়ার পরই কাশ্মীর নিয়ে সমস্যা দেখছে পাকিস্তান। ভারত বিরোধিতায় নেমে পড়েছে ওই দেশের শাসক-বিরোধী উভয় পক্ষই। চলতি সপ্তাহের শুরুতেই নয়াদিল্লির বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের সঙ্গে কাশ্মীরের তুলনা করেন ‘পাকিস্তান মুসলিম লিগ- নওয়াজ’ দলের প্রেসিডেন্ট শাহবাজ শরিফ।

তিনি বলেন, আফগানিস্তানে এ কেমন শান্তিচুক্তি, যা নিয়ে কাবুল উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে? সর্বত্র হিংসা, কাশ্মীরে রক্ত ঝরছে। এমন চুক্তি আমরা মানি না।

কূটনীতিবিদদের মতে, কাশ্মীর ইস্যুকে কেন্দ্র করে আফগানিস্তানের কাছে ভারতকে বেকায়দায় ফেলার চেষ্টা করছে পাকিস্তান। পাহাড়ি দেশ থেকে মার্কিন সৈন্য সরে গেলে কাশ্মীরে তালেবানকে লেলিয়ে দেয়ার পরিকল্পনায় করছে পাকিস্তান।

শাহবাজ শরিফের এই মন্তব্য মোটেও ভালোভাবে নেয়নি তালেবানরা। আনাদলু সংবাদসংস্থাকে দেয়া বিবৃতিতে তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লা মুজাহিদ বলেন, কাশ্মীরের সঙ্গে আফগানিস্তানকে গুলিয়ে ফেললে বর্তমান সমস্যা আরো জটিল হয়ে উঠবে। নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি করতে অন্য দেশ যেন আফগানিস্তানকে প্রতিযোগিতার ময়দান মনে না করে। শুধু তালেবান নয়, কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় পাকিস্তানকে তুলোধোনা করেছেন সাধারণ আফগান নাগরিকরাও।

এদিকে, আফগানিস্তানের প্রভাবশালী রাজনীতিক ও পাকিস্তান বিদ্বেষী বলে পরিচিত প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বৃহস্পতিবার এক টুইটে বলেন, আফগানিস্তানকে কাশ্মীরের সঙ্গে জড়িয়ে পাকিস্তান সরকার গত তিন দিন ধরে এমন কিছু মারাত্মক মন্তব্য করছে যা প্রমাণ করছে পাকিস্তান আফগানিস্তানকে তাদের কৌশলগত ঘাঁটি বা রাজনৈতিক নীতির অঙ্গ হিসাবে মনে করছে। আমি পাকিস্তানকে সতর্ক করে দিচ্ছি, আফগানিস্তান নিয়ে এরকম ভুল ধারণা যেন পাকিস্তান একদম মাথায় না আনে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here