উবার, পাঠাও-কে টেক্কা দিতে এবার আসছে ‘ফাস্ট ড্রাইভ’

0
33

২০১৬ সালে বাংলাদেশে প্রথম রাইড শেয়ারিং সেবা চালু হওয়ার পর থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত প্রায় ২৫টি রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু করলেও এ খাতটি দীর্ঘ সময় কোনো আইনি কাঠামোর মধ্যে ছিল না। তাই একে আইনি কাঠামোর মধ্যে আনতে ২০১৭ সালে রাইড শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স দিতে নীতিমালা প্রণয়নের কাজ শুরু হয় এবং  ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি সেটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পায়।

পরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) লাইসেন্স সংক্রান্ত ঘোষণা দিলে ১৬টি প্রতিষ্ঠান কাগজে-কলমে নিবন্ধনের জন্য আবেদন  করে।

আর বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) চলতি বছরের জুলাই মাস থেকে দেশে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানগুলোকে আনুষ্ঠানিক নিবন্ধন দিতে শুরু করে। সেই ধারাবাহিকতায় সরকারি সকল নীতিমালা অনুসরণ করে আকাশ টেকনোলজি লিমিটেডের রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান ‘ফাস্ট ড্রাইভ’ লাইসেন্স গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়।

পরে চলতি বছরের জুলাই মাসে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের সকল নিয়ম মেনে নিবন্ধন ও লাইসেন্সের জন্য আবেদন করে ‘ফাস্ট ড্রাইভ’।  আর কাজগপত্রে কোনো ভুল না থাকায় খুব অল্প সময়ে দ্রুততার সাথে নিবন্ধন ও লাইসেন্স পেয়ে যায় উক্ত প্রতিষ্ঠানটি।

বিআরটিএ এর নিয়ম অনুযায়ী ১০০ জন পার্টনার ও যানবাহনের নিবন্ধনের বিস্তারিত তথ্য জমা দেওয়ায় আকাশ টেকনোলজি লিমিটেডের ‘ফাস্ট ড্রাইভ’ রাইড শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স পেয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here