এনাফ ইজ এনাফ: জাস্টিন ট্রুডো

0
61

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে যে ভাবেই হোক আমরা মানুষের ঘরে থাকা নিশ্চিত করব। হয় মানুষকে সচেতন করে, না হয় বলপ্রয়োগ করা হবে। কেউ সেটা ঠেকাতে পারবে না। মানুষের বাসায় না থাকার প্রবণতায় বিরক্ত হয়েই এ সব কথা বললেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

সোমবার অটোয়াতে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যারা চলছেন না, এমন ব্যক্তিদের এ হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

এ সময় বিরক্ত হয়ে মি. ট্রুডো বলেন, এনাফ ইজ এনাফ (যথেষ্ট হয়েছে), ঘরে যান এবং সেখানেই অবস্থান করুন। আপনারা যদি এ পরামর্শ এড়িয়ে যান, মানুষের সাথে মিশেন কিংবা জনসমাগমপূর্ণ স্থানে যান তাহলে আপনি শুধু নিজেদেরই যে ঝুঁকিতে ফেলছেন তা নয়, অন্যদেরও ঝুঁকিতে ফেলছেন।

করোনা ভাইরাসে কানাডাতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ২৪ জনে। আক্রান্তের দিক থেকে দেশটি ইতালি ও চীনের পর অর্থাৎ ৩য় অবস্থানে রয়েছে।

এ ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬২১ জনসহ মোট আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৯১ জন। এর মধ্যে ৩২০ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। দেশটিতে বর্তমানে ১ হাজার ৭৪৭ জন আক্রান্ত রয়েছেন। এর মধ্যে ১ হাজার ৭৪৬ জন সাধারণ চিকিৎসাধীন এবং ১ জন আইসিউতে রয়েছেন।

চীন থেকে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে পুরো বিশ্বে। সেখানে ভাইরাসটি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসলেও অন্যান্য দেশে বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। এতে প্রতিদিনই প্রাণ হারাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ১৮৬৮ জন। এ নিয়ে করোনায় সারাবিশ্বে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৬ হাজার ৫৫৩ জনে। এর মধ্যে চীনে মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ২৭৭। চীনের বাইরে মারা গেছে ১৩ হাজার ২৭৬ জন।

এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪১ হাজার ৩৪০ জনসহ আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৮১ হাজার ৫২১ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ২ হাজার ৪২৯ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ১৭১ জন। এছাড়া চীনের বাইরে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৩৫০ জন।

বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ২ লাখ ৬২ হাজার ৫৩৯ জন আক্রান্ত রয়েছেন। তাদের মধ্যে ২ লাখ ৫০ হাজার ৪৭৭ জন চিকিৎসাধীন, তাদের অবস্থা সাধারণ। ১২ হাজার ৬২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক, তারা সবাই আইসিউতে রয়েছেন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশে প্রথম প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় এই ভাইরাসটির। এর ৬৭ দিনের মাথায় এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ছাড়িয়ে যায়। এটি ২ লাখে পৌঁয় ১১ দিনে। সবচেয়ে ভয়াবহ ব্যাপার হল ৩য় লাখে পৌঁছাতে সময় লাগে মাত্র ৪ দিন! অকল্পনীয় গতিতে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান ড. টেড্রস আধানম গেব্রেইয়সুস অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেছেন, সরকারগুলো এই বৈশ্বিক মহামারি ঠেকাতে যথেষ্ট পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তিনি সরকারগুলোকে নিজ নিজ দেশের করোনাভাইরাস পরীক্ষার ব্যবস্থা আরও বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছেন। এছাড়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় এখন লকডাউন যথেষ্ট নয়।

করোনা ভাইরাস পৃথিবীজুড়ে অদ্ভুত এক আঁধারের ছায়া নিয়ে এসেছে। চারিদিক নিরব, নিস্তব্ধ। কেউ কারও সাথে মিশছে না বা চাইছে না। যেন সবাই সবাইকে এড়িয়ে যেতে পারলেই বাঁচে। ‘বিশ্ব গ্রাম’ ধারণায় মানুষ অনেক বছর ধরেই একাকি জীবনের অভ্যস্ত হয়ে উঠছিল। কিন্তু এতটা একাকি হয়তো তারা কখনোই হয়নি। যে চাইলেও তারা একে অন্যের সাথে দেখা করতে পারবে না। সবাই যেন এক যুদ্ধ কেন্দ্রীক জরুরি অবস্থায় রয়েছে।

এক করোনা ভাইরাস পুরো বিশ্বকেই যেন স্তব্ধ করে দিয়েছে। অধিকাংশ দেশেই রাস্তা-ঘাট, অফিস-আদালত, শপিংমল-মার্কেট, রেস্তোরাঁ-বার ফাঁকা। যেন সব ভূতুড়ে নগরী, যুদ্ধকালীন জরুরি অবস্থা চলছে। সবার মধ্যে ভয়, আতঙ্ক আর আশঙ্কা।

উহান, চীনের শিল্পোন্নত এই শহর থেকেই প্রথম করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে ভাইরাসটি প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে আসলেও চীনের বাইরে ব্যাপক হারে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা।

চীনে উদ্ভূত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৯৫টি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলা ব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here