ফেরার ম্যাচে মেসির দুর্দান্ত রেকর্ড

0
190

অনুশীলনে ফিরে ঊরুর ইনজুরিতে পড়ায় অনিশ্চয়তা ছিল তার মাঠে নামা নিয়ে। ম্যাচের আগেরদিন অভয় দেন কোচ কিকে সেতিয়েন, জানান পূর্ণাঙ্গ ফিট লিওনেল মেসিকে নিয়েই খেলতে নামবে বার্সেলোনা। আর ফুল ফিট মেসি কী করতে পারেন, তা আরেকবার দেখল ফুটবল বিশ্ব।

করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকার পর শনিবার রাতে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলেছে বার্সেলোনা। মায়োর্কার মাঠ থেকে ফিরেছে ৪-০ গোলের বড় জয় নিয়েই। একই দলের বিপক্ষে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে বার্সার জয় ছিল ৫-২ গোলের। সেদিন মেসি করেছিলেন হ্যাটট্রিক।

শনিবার দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচেও সম্পৃক্ত রইলেন দলের তিনটি গোলে। যার মাধ্যমে দারুণ এক রেকর্ডও গড়ে ফেলেছেন মেসি। ম্যাচের ৩৬ মিনিটে মার্টিন ব্রাথওয়েট এবং ৭৯ মিনিটে জর্দি আলবার গোলে এসিস্ট করেছিলেন তিনি। তখনও পর্যন্ত গোল করতে পারেননি তিনি। অবশেষে ম্যাচের ৯৩ মিনিটের সময় লুইস সুয়ারেজের এসিস্টে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন মেসি।

চলতি লিগে বার্সেলোনা অধিনায়কের এটি ২০তম গোল। বলাবাহুল্য, তিনিই চলতি লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা। শুধু তাই নয়, লা লিগার ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১২ মৌসুমে ২০ বার তার বেশি গোল করা একমাত্র খেলোয়াড়ও হলেন মেসি। এ কৃতিত্ব দেখাতে পারেননি লা লিগায় খেলা অন্য কোন ফুটবলার।

সর্বপ্রথম ২০০৮-০৯ মৌসুমে ৩১ ম্যাচ থেকে ২৩ গোল করেছিলেন মেসি। সেই থেকে এখনও পর্যন্ত চলছে গোলের ধারাবাহিকতা। ২০১১-১২ মৌসুমে মাত্র ৩৭ ম্যাচেই গোলের ফিফটি করেছিলেন তিনি। এটিও একটি রেকর্ড, যা টিকে রয়েছে এখনও।

মৌসুমভেদে লা লিগায় মেসির গোলসংখ্যা
২০০৮-০৯: ৩১ ম্যাচে ২৩ গোল
২০০৯-১০: ৩৫ ম্যাচে ৩৪ গোল
২০১০-১১: ৩৩ ম্যাচে ৩১ গোল
২০১১-১২: ৩৭ ম্যাচে ৫০ গোল
২০১২-১৩: ৩৪ ম্যাচে ৪৬ গোল
২০১৩-১৪: ৩১ ম্যাচে ২৮ গোল
২০১৪-১৫: ৩৮ ম্যাচে ৪৩ গোল
২০১৫-১৬: ৩৩ ম্যাচে ২৬ গোল
২০১৬-১৭: ৩৪ ম্যাচে ৩৭ গোল
২০১৭-১৮: ৩৬ ম্যাচে ৩৪ গোল
২০১৮-১৯: ৩৪ ম্যাচে ৩৬ গোল
২০১৯-২০: ২৩ ম্যাচে ২০ গোল (লিগ চলমান)

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here