রাজশাহীতে মৃত্যুর আট বছর পর আসামি!

0
78
মৃত্যুর আট বছর পর বাবলু নামের এক ব্যক্তিকে শ্রম আইনের মামলায় আসামি করা হয়েছে। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর রাজশাহী বিভাগীয় শ্রম আদালতে মামলাটি করেছে। এনিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি আদালতের নজরে এলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। এর আগে একই আদালতে আট বছরের এক শিশুকে আসামি করে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মৃত বাবলুর নামে রাজশাহী বিভাগীয় শ্রম আদালতে গেল বছর দায়ের করা ফৌজদারী মামলা নম্বর-২৩০/২০১৯। আসামি মৃত ব্যক্তি এ বিষয়টি নজরে আনা হলে শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান (সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ) গোলক চন্দ্র বিশ্বাস মামলার অভিযোগকারী কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের রাজশাহী কার্যালয়ের শ্রম পরিদর্শক (সাধারণ) আজাহারুল ইসলামকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেন।
ওই আদালতের আইনজীবী সাইফুর রহমান খান রানা জানান, মামলার আসামি নগরীর সাহেববাজার জরিপট্টির ‘স্মৃতি স্বরুপ বাসনালয়ের’ মালিক মো. বাবলু ২০১১ সালের ২ নভেম্বর মারা যান। কিন্তু মামলার অভিযোগকারী সাপ্তাহিক ছুটির দিনে দোকান খোলা রাখার অভিযোগ এনে বাবলুর বিরুদ্ধে যে মামলা দায়ের করেন তাতে দোকান খোলা রাখার তারিখ হিসাবে উল্লেখ রয়েছে ২০১৯ সালের ৫, ১২ ও ১৯ জুলাই এবং ১১ অক্টোবর।
এদিকে মামলা দায়েরের আট বছর আগে আসামি মৃত ব্যক্তির কারণে মামলা চালিয়ে যাওয়ার কোন আইনগত প্রয়োজনীয়তা না থাকায় আদালত আসামিকে অভিযোগের দায় থেকে অব্যহতি এবং মামলা নথিজাতের আদেশ দেন। গত ২০ সেপ্টেম্বর এই আদেশ দেওয়া হয়।
কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের রাজশাহীর উপমহাপরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ভুঁইয়া বলেন, মৃত ব্যক্তিকে আসামি করার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার গাফিলতি আছে বলে মনে হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমি ঢাকায় আছি। তবে বিষয়টি শুনেছি। ইতোমধ্যে আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। রাজশাহী ফিরে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
উল্লেখ্য, শুক্রবার ছুটির দিন দোকান বন্ধ না রাখার অভিযোগ এনে রাজশাহী পবা উপজেলার পূর্ব পুঠিয়াপাড়া গ্রামের জনাব আলীর আট বছরের ছেলে জুবাইর আহমেদকে আসামি করে মামলা করেছে কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর। মামলাটি বর্তমানে রাজশাহী শ্রম আদালতে বিচারাধীন আছে।
watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here