নিকি হ্যালি ভারতীয় আমেরিকানদের সাথে মতবিনিময় “শক্তিশালী ভারত-মার্কিন সম্পর্ক”

0
52

রিপাবলিকান দলের বিশিষ্ট ভারতীয়-আমেরিকান রাজনীতিবিদ নিকি হ্যালি গত শনিবার (২৪ অক্টোবর) মার্কিন নির্বাচনকে সামনে রেখে সেখানে বসবাসরত ভারতীয় আমেরিকানদের সাথে দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতবিনিময় করেন। এগুলোর মধ্যে ছিল ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্ট্র নীতি, চীনকে মোকাবিলা এবং পাকিস্তানে বৈদেশিক সাহায্য বন্ধ করা।

‘ইন্ডিয়ান ভয়েসেস ফর ট্রাম্প ফারায়সাইড চ্যাট’ শিরোনামের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জাতিসংঘে প্রাক্তন মার্কিন রাষ্ট্রদূত হ্যালি বলেন, ট্রাম্পের পররাষ্ট্রনীতি অন্য যেকোনো প্রেসিডেন্টের চেয়ে সফল। ট্রাম্প এবং নরেন্দ্র মোদী দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন এবং এখন উভয় দেশই প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য ও অন্যান্য ক্ষেত্রে অংশীদার।

দক্ষিণ ক্যারোলিনার দুই মেয়াদের গভর্নর হ্যালি যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রেসিডেন্ট প্রশাসনে প্রথম মন্ত্রি পদমর্যাদার ভারতীয়-আমেরিকান ছিলেন। এখন তিনি মার্কিন নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

হ্যালি সমস্ত ভারতীয়-আমেরিকানদের উদ্দেশ্য করে বলেন, তারা যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখে। তাই তাদেরকে সুরক্ষা দেয়াও সে দেশের দায়িত্ব। তিনি চান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বেকারত্বের হার কমাতে এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নতিতে যে সহায়তা করেছেন তা যেন সবাই মনে রাখে।

তিনি আরও বলেন, ট্রাম্পের অনুসৃত নীতি আমাদের প্রতিটি ক্ষেত্রে সফল হতে সহায়তা করেছে এবং আমাদের তাকে সমর্থন দেয়া উচিৎ যাতে করে আমাদের সন্তান এবং নাতি-নাতনিদের জন্য এটি অব্যাহত থাকে।

হ্যালি জানান, যুক্তরাষ্ট্র-ভারত সম্পর্ক অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন আরো ঘনিষ্ঠ। অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের পাশাপাশি ভারতও এখন বিভিন্ন জোটে আমেরিকার সঙ্গী। চীনকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ বলে উল্লেখ করেছেন। ট্রাম্প প্রশাসন চীনের প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখছে তারা যেন আর বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ চুরি করতে না পারে।

সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে হ্যালি বলেন, আমেরিকান সৈন্যদের হত্যার চেষ্টা করা সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেয়ার কারণে ট্রাম্প পাকিস্তানকে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার অর্থ সাহায্য প্রদান বন্ধ করে দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ট্রাম্প প্রশাসনের ভারতীয়-আমেরিকান ফিন্যান্স কমিটির সহ-সভাপতি আল ম্যাসন। তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ভারতীয় ও চীনা সেনাদের মধ্যে সশস্ত্র সংঘাতের হুমকির মধ্যে চীনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন। ফেব্রুয়ারিতে তিনি ভারত সফর করে বিশ্বকে বার্তা দেন যে, আমেরিকা ও ভারত বিশ্বস্ত বন্ধু হিসেবে ভবিষ্যতে একে অপরের পাশে থাকবে।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here