খুলনার জিরো পয়েন্টে মৃত্যুঝুঁকি সড়কে বেহাল দশা,

0
115

গতিনিরোধক ব্যবস্থা নেই, প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা

খুলনার রূপসা বাইপাসের সবচেয়ে ব্যস্ততম ঝুঁকিপূর্ণ মোড় জিরোপয়েন্ট। সংস্কারের অভাবে সড়কে বেহাল দশা ও গতিনিরোধক ব্যবস্থা না থাকায় বিপজ্জনক এ স্থানে মৃত্যুঝুঁকি বাড়ছে। গত দুই দিনে এখানে সড়ক দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু ও কয়েকটি যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সড়কে পিচ উঠে বড় গর্ত, এবড়োখেবড়ো অবস্থা, রোড ডিভাইডার (সড়ক বিভাজন) না থাকা ও সড়ক দ্বীপ বিলবোর্ড-পোস্টারে ছেয়ে থাকায় চালকরা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনায় পড়ছেন।

জানা যায়, গতকাল সকালে খুলনা-সাতক্ষীরা সড়কে জিরোপয়েন্ট শিকদার পেট্রোলপাম্পের সামনে ট্রাকের নিচে পিষ্ট হয়ে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন। পুলিশ জানায়, মোটরসাইকেলে করে ওই দুজন খেজুরের রস নিয়ে খুলনার দিকে আসছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে দ্রতগামী ট্রাকের সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ হয়। এতে দুজন সড়কে সিটকে পড়লে চলন্ত ট্রাকের চাকার নিচে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে তাদের মৃত্যু হয়। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বালু বোঝাই একটি ট্রাক রূপসা থেকে ফুলতলা যাওয়ার পথে জিরোপয়েন্টে সড়কের গর্তে পড়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। মেরামতের পর সেটি সরিয়ে নেওয়া হয়। নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর খুলনা নগর সভাপতি এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব জানান, খুলনা শহর থেকে সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটসহ বিভিন্ন রুটে প্রতিদিন অসংখ্য ভারী যানবাহন এ পথ দিয়ে চলাচল করে। কিন্তু সংস্কারের অভাবে জিরোপয়েন্ট ঘিরে সড়কে পিচ উঠে বেহাল অবস্থা তৈরি হয়েছে। চলাচলের সময় ধুলোর পুরো আস্তরণ পার হতে হয়। অপ্রশস্ত সড়কে কোনো ট্রাফিক ব্যবস্থা না থাকায় যানবাহনের বেপরোয়া গতির কারণে দুর্ঘটনা বাড়ছে। এ ছাড়া বিভিন্ন স্থানে সংযুক্ত লিংক রোডে প্রতিবন্ধকতা না থাকায় সরাসরি যানবাহন মহাসড়কে চলে আসায় ঝুঁকি বাড়ছে। তবে খুলনা সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) জানিয়েছে, জিরোপয়েন্টসহ খুলনা-চুকনগর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের বিপজ্জনক বাঁকে সতর্কীকরণ বার্তা সংবলিত বিভিন্ন সাংকেতিক চিহ্ন দেওয়া হয়েছে। সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুজ্জামান মাসুদ বলেন, জিরোপয়েন্টের ওই অংশসহ কুদির বটতলা পর্যন্ত সড়ক সংস্কারের দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। ঝুঁকি এড়াতে জিরোপয়েন্ট থেকে রূপসা ব্রিজের দিকে যেতে মহাসড়কে রোড ডিভাইডার নির্মাণ করা হচ্ছে। বিপজ্জনক স্থানগুলোতে সড়কে প্রশস্ততা বাড়ানোরও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here