ভারতের জেলায় জেলায় চলছে Vaccination, ‘কোনও সমস্যা হচ্ছে না,’ জানালেন টিকাগ্রহীতারা

0
113

সারা দেশের সঙ্গে রাজ্যেও শুরু হয়ে গিয়েছে করোনার গণ টিকাকরণ (Vaccination)। প্রথম পর্যায়ে প্রায় ৬,৮৯,০০০ টিকার ডোজ পাঠিয়েছে কেন্দ্র। যার মধ্যে কলকাতা পেয়েছে প্রায় ৯৪ হাজার ভ্যাকসিন (Covid Vaccine)। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, কলকাতার এসএসকেএম, মেডিকেল কলেজ, আরজি কর এবং ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজে প্রথম ধাপে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। টিকাকরণ চলবে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। এর পাশাপাশি বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালেও চলছে টিকাকরণ। বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালের কর্মীদের টিকা দেওয়া হবে। ঢাকুরিয়া আমরি হাসপাতালে প্রথম ভ্যাকসিন নেন চিকিত্সক বিপাশা শেঠ।

অন্যদিকে, হুগলির চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালের সুপার সঞ্জয় কুমার রায়, চন্দননগর মহকুমার উপ-স্বাস্থ্য আধিকারিক মহুয়া মোহান্তি ভ্যাকসিন নিলেন। দুজনেই জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন নেওয়ার পর সুস্থ আছেন। কোনো শারীরিক সমস্যা অনুভূত হয়নি। ঝাড়গ্রাম জেলায় প্রথমে হাসপাতালের পদস্ত কর্তারা টিকা নেন। তারপর পুলিস, নার্স সহ বিভিন্ন ফ্রন্টলাইনারদের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হয়েছে। সবারই বক্তব্য, টিকা নেওয়ার পর এখনও কোনও সমস্যা হয়নি। নদিয়াতেও চলছে টিকাকরণ।

জলপাইগুড়িতে প্রথম ভ্যাকসিন নেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্মবন্ধু ভরত ডোম। ভ্যাকসিন নেন প্যাথোলজি বিভাগের গ্রুপ-ডি কর্মচারী তপন কুমার দেবসিংহ। উল্লেখ্য, তিন মাস আগে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। ধূপগুড়ি, ময়নাগুড়ি, মালবাজার, জলপাইগুড়ি CMOH কমপ্লেক্স ও হলদিবাড়ি- জলপাইগুড়ি জেলায় এই মোট ৫টি কেন্দ্রে চলছে টিকাকণ।

শিলিগুড়ি শহরেও চলছে টিকাকরণ। শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে দেওয়া হচ্ছে করোনা ভ্যাকসিন (Covid Vaccine)। প্রথম ভ্যাকসিন নেন জেলার CMOH প্রলয় আচার্য ও সুমন্ত সহায়। প্রথম ধাপে দার্জিলিং জেলায় ৫টি পয়েন্টে চলছে ভ্যাকসিনেশন। শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতাল, উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ, খড়িবাড়ির পাশাপাশি দার্জিলিং ও কার্শিয়াংয়ে টিকা দেওয়া হচ্ছে। প্রথমদিন দার্জিলিং জেলায় ৫০০ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের আউটডোরে করোনা টিকাকরণ (Vaccination) কেন্দ্র খোলা হয়েছে। বীরভূম জেলাতেও চলছে টিকাকরণ। জেলায় মোট ১২টি সেন্টার করা হয়েছে। প্রত্যেক সেন্টারে ১০০ জন করে টিকা দেওয়া হচ্ছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে সাড়ে ১০ হাজার ও রামপুরহাট স্বাস্থ্য বিভাগে সাড়ে ১১ হাজার ডোজ এসেছে। দুটি টার্মে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাতেও শুরু হয়ে গিয়েছে টিকাকরণ। ৬৪ বছরের চিকিৎসক প্রদীপ ধর প্রথম ভ্যাকসিন নেন। বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে ভ্যাকসিন অনুষ্ঠানের সূচনা করেন জেলাশাসক ও জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক। অন্যদিকে, ওদলাবাড়ি হাসপাতালে প্রথম ভ্যাকসিন দেওয়া হলো আশাকর্মী রিনা বারাকে। আরও পড়ুন, ‘দু-দুটো মেড ইন ইন্ডিয়া ভ্যাকসিন,’ দেশজুড়ে করোনা টিকাকরণের সূচনা প্রধানমন্ত্রীর

পশ্চিম বর্ধমান জেলায় ৬টি সেন্টারে দেওয়ার হচ্ছে কোভিড টিকা (Covid Vaccine)। ৬০০ জনকে দেওয়া হবে এই টিকা। স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রথমদিন টিকা দেওয়া হচ্ছে। আসানসোল পুরনিগমের প্রশাসক বোর্ডের সদস্য তথা স্বাস্থ্য বিভাগের বিদায়ী মেয়র পরিষদ দিব্যেন্দু ভগৎ প্রথম টিকা নেন। রানিগঞ্জ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রথম টিকা নেন ডক্টর অভীক গুপ্ত। এছাড়া পিঠাই কেয়ারী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, বাহাদুরপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্র, দুর্গাপুরের সৃজনী হল ও পানাগড় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে টিকা দেওয়া হচ্ছে।

টিকাকরণ কর্মসূচিতে হাওড়ার উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালের ১০০ জনকে কোভিড টিকা দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসক, হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকা নিলেন। বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজেও টিকাকরণ শুরু হয়েছে। হাসপাতালের স্ক্যাভেঞ্জার কর্মী পূর্ণ সহিসকে সবার প্রথমে এই টিকা দেওয়া হয়। পূর্ণ সহিস জানান, প্রথমে একটু একটু ভয় লাগলেও, টিকা নেওয়ার পর আর ভয় লাগেনি। আরও পড়ুন, Covid Vaccination Drive : করোনা টিকা কারা নিতে পারবেন, কারা নয়, জেনে নিন

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শেষে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে শুরু হয় করোনার ভ্যাকসিনেশন (Vaccination)। জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকদের পাশাপাশি ১০০ জন উপভোক্তাকে দেওয়া হবে করোনার ভ্যাকসিন। জেলার ১১টি সেশন সাইটে এই টিকাকরণ চলছে। প্রত্যেকেই জানান, ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে তাঁদের কোনও সমস্যা হচ্ছে না। একইসঙ্গে পুরুলিয়া জেলার ৬টি কেন্দ্রেই চলছে টিকাকরণ। পুরুলিয়া মেডিক্যাল কলেজ ছাড়াও রঘুনাথপুর,কোটশিলা, হুরা ঝালদায় টিকাকরণ চলছে। জেলার মোট ১৮,১৭৬ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হবে। আজ প্রথম পর্বে প্রতি কেন্দ্রে ১০০ জনকে দেওয়া হবে টিকা।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here