ঠাকুরগাঁওয়ে আ.লীগ অফিসে হাতবোমা বিস্ফোরণ

0
759
হাসিব ,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ৪র্থ দফায় ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের অফিসে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা।
 মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।
এসময় জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে দলের নেতাকর্মীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একইস্থানে গিয়ে সমাবেশ করে।
আসন্ন ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে দুইটি হাতবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে আজ। এর আগের  রাতে এক নির্বাচনী অফিসে আগুনও দেওয়া হয়েছে।মঙ্গলবার আনুমানিক দুপুর ১টার দিকে ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ বোমা নিক্ষেপ করা হয় বলে জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম।গতকাল ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আর্ট গ্যালারি এলাকার নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।তবে এসব ঘটনায় কেউ হতাহত হননি বলে জানান সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম।
ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম আরো বলেন, খবর পেয়ে জেলা আওয়ামী লীগ অফিস এবং শহরের আর্টগ্যালারি এলাকায় পুড়িয়ে দেওয়া নৌকা প্রতীকের অফিস পরির্দশন করা হয়েছে।“এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”আসন্ন আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি ঠাকুরগাঁও পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের আঞ্জুমান আরা বেগম বন্যা, বিএনপির শরিফুল ইসলাম শরিফ ও ইসলামী বাংলাদেশের আনোয়ার হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
আঞ্জুমান আরা বেগম বন্যা বলেন, গত গভীর রাতে পৌরসভার আর্টগ্যালারি এলাকার নির্বাচনী অফিসে দুর্বৃত্তরা আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুনে অফিসের চেয়ার-টেবিল, ব্যানার ও পোস্টার পুড়ে গেছে।ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আলম টুলু বলেন, মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বসে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে কাজ করছিলাম। হঠাৎ দলীয় কার্যালয়ের নিচতলায় একটি হাত বোমা এবং পরে দ্বিতীয় তলায় আরেকটি হাত বোমা বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়।
এ সময় দলীয় কার্যালয় এবং আশাপাশ এলাকা ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে পড়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে বলে জানান তিনি।আরও বলেন, বিএনপির মেয়র প্রার্থী শরিফুল ইসলাম শরিফ অবৈধ অর্থ দিয়ে সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ওপ্রতিবাদ জানাচ্ছি।তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শরিফুল ইসলাম শরিফ  বলেন, আওয়ামী লীগ নিজেরাই এসব ঘটনা ঘটিয়ে আমাদের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। আমাদের নির্বাচনকে বানচাল করতে এ নাটক করা হয়েছে।
এদিকে, দুপুরের এ বোমা বিস্ফোরেণের পর তাৎক্ষণিকভাবে সহযোগী সংগঠনসহ জেলা আওয়ামী লীগ একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।মিছিল শেষে পথসভায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা বক্তব্য দেন।
watch price in bangladesh