ঈদযাত্রা ও জনদূর্ভোগ- আমলাতান্ত্রিক কুটকৌশলের কাছে পরাজিত সরকার

0
112

শেখ জনি ইসলাম, (এডিটরিয়াল) : ঢাকাসহ সকল শহর ও জেলা শহরে দোকানপাট, অফিস- আদালত সব খুলে দিয়ে শুধু মাত্র যাত্রী পরিবহন বন্ধ রেখে দুরকম সিন্ধান্ত নেয়া হলো। আবার সকলশহর ও জেলাশহরে আভ্যন্তরীণ গণপরিবহন চালু থাকলো। অথচ দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ থাকলো। স্কুল- কলেজ,বিবি বন্ধ দীর্ঘ সময়।

জন্ম লগ্ন থেকেই দক্ষিন বঙ্গের ২১ জেলার মধ্যে দু’একটি জেলা বাদে বেশিরভাগ জেলাসমূহে আওয়ামীলীগের জনপ্রিয়তা বেশী । এবার ঈদ উপলক্ষে পরিকল্পিত ভাবে আমলারা বতর্মান সরকারকে জনগনের প্রতিপক্ষ বানিয়ে জনপ্রিয়তায় ধস নামিয়েছে। যেমন, অপরিকল্পিত লকডাউন, স্বল্প ছুটি, আন্তজেলা পরিবহন বন্ধ, স্প্রীডবোট, ট্রলার, লন্চ বন্ধ রেখে স্বল্পপরিসরে ফেরি চলাচল সহ ফালতু কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করে জনদূর্ভোগ সৃস্টির কারণে দক্ষিনবঙ্গের জনগন বিশেষ করে পদ্মার ওপারের জনগন বতর্মান সরকারের উপরে বিরক্ত যার প্রভাব আগামী যে কোন নিবার্চনে পড়বে এবং যেকোন সরকার বিরোধী আন্দোলনে এই জনগনই যারা একসময় সরকারের পক্ষে ছিল তাঁরাই বিপক্ষে অংশগ্রহণ করবে। আর এটাই সচিবালয়ে ঘাপটি মেরে থাকা সরকার বিরোধি আমলাদের সফলতা । আর আমলাদের এই কুটকৌশল বুঝতে না পারা আওয়ামীলীগ সরকারের অদক্ষ মন্ত্রীপরিষদের ব্যর্থতা। এই সব ভুল সিদ্ধান্তোই একসময় বতর্মান সরকারকে পুরোপুরি জনবিছিন্ন করে ফেলবে এবং ভয়াবহ খারাপ পরিনতি ডেকে আনবে।

এমন সিন্ধান্ত গুলো দেখলে মনে হয়, এ গুলো মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নিচ্ছে না। কারন এগুলো একজন দূর্দশী সফল প্রধানমন্ত্রী নিতেই পারে না। এই অপরিকল্পিত সিদ্ধান্তে তাকে জনবিচ্চিন্ন শুধু করছে না বরং বড় হুমকি তে নিক্ষেপ করছে। এই সরকার বিরোধী কৌশলীআমলাদের কঠিন খেলায় কত তে মানুষ সরকারের বিরুদ্ধে রোডে নামবে তা শুধু সময়ের ব্যাপার।

এখনই সাবধান হয়ে ইতিবাচক সিন্ধান্ত গ্রহন না করলে। মেজরিটি মানুষের চাহিদা মোতাবেক সিদ্ধান্ত নিতে না পারলে সরকারের সব সফলতা ব্যার্থতায় পরিনত হবে।

watch price in bangladesh

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here