বরিশাল চাঁদপুরা ইউনিয়নে সাবেক সেনাসদস্যের হামলা

0
45

নিজ জমিতে গাছ লাগানোকে কেন্দ্রকরে বরিশাল সদর উপজেলার ৮ নং চাঁদপুরা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ ইব্রাহিম হাওলাদারের উপর হত্যার উদেশ্য হামলা করে একই গ্রামের সাবেক সেনাসদস্য মহিউদ্দিন বাচ্চু। জানা যায়, নিজ জমিতে মোঃ ইব্রাহিম একটি কাঁঠাল গাছ রোপন করে।পাশাপশি বিভিন্ন ফলের গাছ ওই জমিতে রোপন করত। প্রতিদিনের ন্যায় বাড়ির পাশ্ববর্তী পুকুরে গোসল করতে যায় ইব্রাহিম হাওলাদার (৩২)।এসময় অত্রগ্রামের বাসিন্দা সাবেক সেনাসদস্য মহিউদ্দিন বাচ্চু তার স্ত্রী-বড় ছেলে ও ভায়রা সহ পুকুর পাড়ে এসে ইব্রাহিম কে কাঁঠাল গাছ লাগানোর বিষয়টি জানতে চায়।এসময় ইব্রাহিম তাদের জানায়,আমার ক্রয়কৃত জমিতে আমি গাছ লাগিয়েছি। তদ্রুপ সাবেক সেনাসদস্য বাচ্চু মুহুর্তের ভিতর ক্ষমতার জোর দেখিয়ে কাঁঠাল গাছ সহ বিভিন্ন গাছ উপড়ে ফেলে।গাছ উপড়ে ফেলার কারন ইব্রাহিম জানতে চাইলে তাকে প্রথম পর্যায়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় বেধম প্রহার দিয়ে হত্যার উদেশ্য লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে।এতে ইব্রাহিমের মাথায় গুরুতর জখম হয়। একপর্যায়ে, ইব্রাহিম জ্ঞান হারিয়ে পুকুরে লুটিয়ে পড়লে তার মায়ের ডাকচিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে। শুধু হত্যার উদেশ্য হামলা করেই ক্ষ্যান্ত হননি ঘাতক বাচ্চু।ইব্রাহিমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করতে একাধিক বার হাসপাতালের শয্যায় মহড়া দেয়। এ ব্যাপারে মোঃ ইব্রাহিমের চাচা দুলাল জানায়,মেডিকেল থাকা অবস্থায় আমাকে বিভিন্ন ভাবে ঘাতক বাচ্চু লোকদিয়ে হুমকি দিয়েছে।আমি যেন মেডিকেল না থাকি।তাইলে আমার নামেও মামলা দেওয়া হবে।এমতাবস্থায় আমরা আতংকে দিন কাটাচ্ছি। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে এই রোগী সুস্থ হলেও ভবিষ্যতে ব্রেন্ট স্টোকের শংকা থেকে যাবে।এছাড়া বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছে ইব্রাহিম। এক অনুসন্ধানে জানা যায়,সাবেক এই সেনাসদস্য মহিউদ্দিন বাচ্চু এলাকায় এক আতংকের নাম।তার অত্যাচার আর নির্যাতনে অসহায় হয়ে পড়েছে গ্রামের সাধারন বাসিন্দারা। তার বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলেই তাদের হতে হয় লাঞ্চিত ও হামলার শিকার। দীর্ঘ ২৫ বছর যাবত মোঃ ইব্রাহিম গংয়ের জমি কৌশলে হাতিয়ে নিয়ে পুকুর কেটে রেখেছে বাচ্চু।সেই পুকুরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করে একাই ভোগ করে সে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানা যায়,এলাকায় বিভিন্ন অরাজকতা সৃষ্টি করে সেনাবাহিনীর ভয় দেখিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বাচ্চু। তার হামলা-হুমকির ভয়ে নিজ গ্রামেও আসতে পারছেনা বাচ্চুর আপন ছোটভাইয়েরা। গোপন একটি সুত্রের তথ্যমতে জানা যায়,ঢাকা জেলা পুলিশের এক সিনিয়র কর্মকর্তা ঘনিষ্ঠ আত্মীয় হওয়ার সুবাধে গ্রেফতার কিংবা তার বিরুদ্ধে মামলার বিষয়টি নিয়ে ভাবছেননা সাবেক এি সেনাসদস্য। এ ব্যাপারে সাবেক এই সেনাসদস্য বাচ্চুকে তার মুঠোফোনে ফোন দিলে, সে জানায় আমি কোন হামলা করিনি। এছাড়া আমার সাথে তার কিছুই হয়নাই। এছাড়া ইব্রাহিমের উপর যদি আমি হামলা করে থাকি তাহলে তাকে থানায় মামলা করতে বলেন বলে ফোন কেটে দেয়।

watch price in bangladesh